কুড়িগ্রাম জেলা কিসের জন্য বিখ্যাত কুড়িগ্রাম জেলার বিখ্যাত ব্যক্তি

বন্ধুরা আজকে আমরা কুড়িগ্রাম জেলা নিয়ে আলোচনা করব। আপনি যদি কুড়িগ্রাম জেলা নিয়ে নানা তথ্যগুলো জানতে চাচ্ছেন; তাহলে আজকে আমাদের এই আলোচনাটি আপনার জন্য অনেক উপকারী হতে চলেছে। আজকে আমাদের মূল আলোচ্য বিষয় হচ্ছে কুড়িগ্রাম জেলা কিসের জন্য বিখ্যাত।

তাছাড়াও এই কুড়িগ্রাম জেলা নিয়ে যতসব প্রশ্ন থাকে সে সবগুলো প্রশ্নের উত্তর আজকের এই পোস্টে দেওয়ার চেষ্টা করব। কথা না বাড়িয়ে চলুন মূল আলোচনায় আমরা চলে যাই। শেষ পর্যন্ত এই ব্লগ পোস্টটি পড়ার অনুরোধ রইলো।

কুড়িগ্রাম জেলার ইতিহাস এবং নামকরণ

কুড়িগ্রাম জেলা হচ্ছে বাংলাদেশের উত্তর অঞ্চলে শীর্ষে অবস্থিত একটি জেলা। এই জেলাটি সীমান্তবর্তী জেলা। অর্থাৎ বাংলাদেশের শেষ সীমানায় এই জেলাটি অবস্থিত। এর সাথে ভারতের সীমানা লেগে আছে।

কুড়িগ্রাম জেলাটি রংপুর বিভাগের অন্তর্ভুক্ত একটি জেলা। কুড়িগ্রাম নামক এই উত্তর অঞ্চলের জেলাটি ১৯৮৪ সালের প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আর বাংলাদেশের ৬৫ টি জেলাগুলোর মধ্যে কুড়িগ্রাম জেলার কোড হচ্ছে – ০৭।

কুড়িগ্রামের নামকরণ নিয়ে যদি আমরা কথা বলি তাহলে এই নামকরণের পিছনের রহস্যের সঠিক কোন ব্যাখ্যা জানা যায়নি। তবে অনেকের মতে এটি জানা গেছে যে, গণিতে ‘কুড়ি’ শব্দ থেকে এই কুড়িগ্রাম জেলার নামকরণ করা হয়েছে।

আরো পড়ুনগাজীপুর কিসের জন্য বিখ্যাত? গাজীপুরের পূর্ব নাম কি?

তাছাড়াও অনেকে বলে থাকেন যে পূর্বে এ অঞ্চলে ২০ অর্থাৎ কুড়িটি “কলু” পরিবারের বসবাস ছিল। এই কলু পরিবার থেকে এই কুড়িগ্রাম শব্দটি এসেছে। আমরা সকলেই জানি ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় গোটা বাংলাদেশকে মোট ১১ টি সেক্টরে ভাগ করা হয়েছিল।

এই সেক্টর গুলোর মধ্যে কুড়িগ্রাম জেলা ৬ নং সেক্টরের অধীনে ছিল। কিন্তু বিস্তারিতভাবে লক্ষ্য করা গেলে দেখা যাবে তৎকালীন কুড়িগ্রাম জেলার অনেকগুলো অঞ্চল কিন্তু ১১ নং সেক্টরের অধীনেও ছিল।

কুড়িগ্রাম জেলা কিসের জন্য বিখ্যাত? কুড়িগ্রাম জেলার ৯ টি বিখ্যাত স্থান

কুড়িগ্রাম জেলা বিখ্যাত হওয়ার পিছনে অনেকগুলো কারণ রয়েছে। তার মধ্যে একটি হচ্ছে এর দর্শনীয় স্থানসমূহ যেগুলোর জন্যে এই জেলা অনেকটায় বিখ্যাত।

কুড়িগ্রাম জেলায় ভ্রমণের জন্য অনেক ঐতিহাসিক ও দর্শনীয় স্থান রয়েছে। ঐতিহাসিক ও দর্শনীয় স্থান কুড়িগ্রামের একটি ঐতিহ্য রক্ষা করে। কুড়িগ্রামের ঐতিহাসিক ও দর্শনীয় স্থানসমূহ হচ্ছে –

  1. কুড়িগ্রামের শাহী জামে মসজিদ
  2. কুড়িগ্রামের চান্দামারী মসজিদ
  3. কুড়িগ্রামের চন্ডী মন্দির
  4. কুড়িগ্রামের গুরুমঞ্চ মন্দির
  5. ভেতর মন্দ জমিদার বাড়ি
  6. নাওডাঙ্গা জমিদার বাড়ি
  7. কুপামারী পুকুর
  8. কুড়িগ্রামের ধরলা ব্রিজ
  9. চিলমারী বন্দর বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

কুড়িগ্রাম জেলার আয়তন

বাংলাদেশের অন্যতম এই জেলাটি উত্তরবঙ্গে অবস্থিত। উত্তরবঙ্গে শীর্ষে অবস্থিত এই জেলাটির মোট আয়তন হচ্ছে ২২৪৫.০৪ বর্গ কিলোমিটার। কুড়িগ্রাম জেলা বাংলাদেশের মোট চারটি জেলার সাথে নিজের সীমান্ত বন্টন করে। পশ্চিমের লালমনিরহাট জেলা ও রংপুর জেলা।

দক্ষিণ-পশ্চিমে গাইবান্ধা জেলা এবং দক্ষিণে জামালপুর জেলা। এই চারটি জেলার সাথে কুড়িগ্রাম জেলা নিজের সীমান্ত বন্টন করে। তাছাড়াও, কুড়িগ্রাম জেলার উত্তর ও পূর্ব পাশে ভারতের কুচবিহার রয়েছে। অর্থাৎ উত্তর ও উত্তর-পূর্ব পাশে ভারতের কোচবিহারের সাথে কুড়িগ্রাম জেলা নিজের সীমান্ত বন্টন করে রেখেছে।

কুড়িগ্রাম জেলার জনসংখ্যা কত?

২০২০ সালের এক গণনা অনুযারী বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত কুড়িগ্রাম জেলার মোট জনসংখ্যা ছিল – ২৩,২৯,১৬১ জন। অর্থাৎ, ২৩ লক্ষ ২৯ হাজার ১৬১ জন

কুড়িগ্রাম জেলার উপজেলা সমূহ

এখন যদি কুড়িগ্রাম জেলার অন্তর্ভুক্ত সকল উপজেলার কথা বলা যায়। তাহলে জানা যাবে এই কুড়িগ্রাম জেলাটির মোট উপজেলা সংখ্যা রয়েছে ০৯ টি। উপজেলার নামগুলো হচ্ছে –

  1. কুড়িগ্রাম সদর
  2. উলিপুর
  3. চিলামারী
  4. নাগেশরী
  5. ভুরুঙ্গামারী
  6. রাজীবপুর
  7. রাজার হাট
  8. ফুলবাড়ী ও
  9. রৌমারী

এই উপজেলাগুলোর মধ্যে আয়তনের দিক দিয়ে নাগেশ্বরী ও উলিপুর সবচেয়ে বড় উপজেলা। আর অন্যদিকে আয়তনের দিক দিয়ে সবচেয়ে ছোট উপজেলা হচ্ছে ফুলবাড়ি ও রাজার হাট।

Read More : রৌমারী উপজেলার দর্শনীয় স্থান ও রৌমারী উপজেলা চেয়ারম্যান

কুড়িগ্রাম জেলার সংসদীয় এলাকা কয়টি ও কি কি?

কুড়িগ্রাম জেলায় উপজেলার মতো পুলিশ থানার সংখ্যাও রয়েছে মোট ০৯ টি। অর্থাৎ, কুড়িগ্রাম জেলার অন্তর্ভুক্ত মোট থানা হচ্ছে ০৯ টি। তাছাড়াও কুড়িগ্রাম জেলার জন্য জাতীয় সংসদে মোট ০৪ টি আসন সংখ্যা বরাদ্দ করা আছে।

যার মধ্যে ০৩টি সাধারণ আসন রয়েছে এবং ০১ টি রয়েছে সংরক্ষিত মহিলা আসন।

  • কুড়িগ্রাম-০১ : নাগেশরী ও ভুরুঙ্গামারী
  • কুড়িগ্রাম-০২ : রাজার হাট, ফুলবাড়ী ও কুড়িগ্রাম সদর
  • কুড়িগ্রাম-০৩ : উলিপুর (সংরক্ষিত মহিলা আসন)
  • কুড়িগ্রাম-০৪ : চিলামারী, রাজীবপুর ও রৌমারী

কুড়িগ্রাম জেলার বিখ্যাত ব্যাক্তি

কুড়িগ্রামের বুকে অনেক উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিবর্গগণ জন্ম নিয়েছে। যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু ব্যক্তিত্ব হচ্ছে-

  • সাহিত্যিক সৈয়দ শামসুল হক
  • বীর নারী মুক্তিযোদ্ধা তারামন বিবি
  • ব্রিটিশ বিরোধী সৈন্যদের নেতা ভবানী পাঠক
  • বাংলা সংগীত পরিচালক অজিত রায়
  • আনোয়ারা সৈয়দ হক
  • কছিম উদ্দিন
  • আব্বাসউদ্দীন আহমদ
  • আককাছ আলী সরকার
  • আব্দুর রহমান (বুদ্ধিজীবী)
  • আমজাদ হোসেন তালুকদার
  • শামসুল হক চৌধুরী

কুড়িগ্রাম জেলার নদনদী

কুড়িগ্রাম জেলার ভৌগলিক অবস্থান সম্পর্কে কথা বললে কুড়িগ্রাম জেলা ধরলা নদীর তীরে অবস্থিত। এছাড়াও ব্রহ্মপুত্র নদী, তিস্তা নদী এবং দুধকুমার নদীসহ অনেক ছোট ছোট নদী এই জেলার উপর দিয়ে বয়ে গেছে।

কুড়িগ্রাম জেলার ঐতিহ্যবাহী ও বিখ্যাত খাবার কি?

কুড়িগ্রামের ঐতিহ্যবাহী বা জনপ্রিয় খাবার সম্পর্কে কথা বললে জানা যায়, কুড়িগ্রাম জেলাটি ক্ষীরমোহন এর জন্য অনেক বিখ্যাত। ক্ষীরমোহন হচ্ছে এক রকমের মিষ্টান্ন খাবার। এই ক্ষীরমোহন কুড়িগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মিষ্টান্ন হিসেবে পরিচিত রয়েছে।

আরো পড়ুনফরিদপুর কিসের জন্য বিখ্যাত | ফরিদপুর জেলার বিখ্যাত ব্যাক্তি

FAQ

কুড়িগ্রাম জেলার বিখ্যাত মুক্তিযোদ্ধা

কুড়িগ্রাম জেলার বিখ্যাত মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন বীর নারী মুক্তিযোদ্ধা তারামন বিবি

কুড়িগ্রাম জেলার থানা কয়টি?

কুড়িগ্রাম জেলার থানা মোট ৯টি। সাথে এই জেলার অন্তর্ভুক্ত মোট উপজেলা সংখ্যাও ৯টি।

কুড়িগ্রাম জেলার বিখ্যাত ব্যক্তির নাম কি?

কুড়িগ্রাম জেলার অনেক বিখ্যাত ব্যক্তিগণ রয়েছেন। যাদের মধ্যে কিছু ব্যাক্তিদের নাম হচ্ছে-
সাহিত্যিক সৈয়দ শামসুল হক, বীর নারী মুক্তিযোদ্ধা তারামন বিবি, ব্রিটিশ বিরোধী সৈন্যদের নেতা ভবানী পাঠক এবং বাংলা সংগীত পরিচালক অজিত রায় প্রমুখ উল্লেখযোগ্য।

কুড়িগ্রাম কত নম্বর সেক্টরের অধীনে ছিল?

কুড়িগ্রাম জেলা ৬ নং সেক্টরের অধীনে ছিল। কিন্তু বিস্তারিতভাবে লক্ষ্য করা গেলে দেখা যাবে তৎকালীন কুড়িগ্রাম জেলার অনেকগুলো অঞ্চল কিন্তু ১১ নং সেক্টরের অধীনেও ছিল।

কুড়িগ্রাম জেলার আয়তন কত?

উত্তরবঙ্গে শীর্ষে অবস্থিত এই কুড়িগ্রাম জেলার মোট আয়তন হচ্ছে ২২৪৫.০৪ বর্গ কিলোমিটার।

By AzimAdmin

Hi, I am a professional Blogger & SEO Expert. I am working on this field since 2019. I've a huge experience in my profession. I also worked on so many projects and websites.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *