গাজীপুর কিসের জন্য বিখ্যাত? গাজীপুরের পূর্ব নাম কি?

সকল বন্ধুদের আমাদের ব্লগে স্বাগতম। আপনি কি গাজীপুর জেলা নিয়ে তথ্য জানতে চাচ্ছেন? আপনি কি জানতে চান গাজীপুর কিসের জন্য বিখ্যাত? তাহলে আজকের আমাদের এই ব্লগটি আপনার জন্যই। আজকে আমাদের আলোচ্য বিষয় গাজীপুর জেলা নিয়ে।

বাংলাদেশের সুনির্দিষ্ট একটি জেলা হচ্ছে গাজীপুর জেলা। যারা পড়ালেখা করেছেন তারা সবাই এই গাজীপুর জেলার নাম নিয়ে কোথাও না কোথাও কোন না কোন বিষয় পড়েছেন। অতঃপর আমরা বলতে পারি গাজীপুর জেলা বাংলাদেশের অন্যতম একটি বিখ্যাত ও গুরুত্বপূর্ণ জেলা।

গাজীপুর কবে স্বাধীন হয়?

গাজীপুর জেলা বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলের মতো ১৯৭১ সালের ১৫ই ডিসেম্বর শেষ রাতে অর্থাৎ ১৬ই ডিসেম্বরে স্বাধীন হয়। আমরা যদি বাংলাদেশের মানচিত্র লক্ষ্য করি তাহলে আমরা দেখতে পারবো গাজীপুর জেলা বাংলাদেশের মানচিত্রে মাঝামাঝি অবস্থানে রয়েছে।

এই গাজীপুর জেলাতে ঢাকা বিভাগের অন্তর্ভুক্ত। অতি জনপ্রিয় এই গাজীপুর জেলাটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮৪ সালে। বাংলাদেশের মোট 35 জেলার মধ্যে গাজীপুরের জেলা কোন হচ্ছে ৪১।

Read More : ফরিদপুর কিসের জন্য বিখ্যাত | ফরিদপুর জেলার বিখ্যাত ব্যাক্তি

গাজীপুর কিসের জন্য বিখ্যাত

গাজীপুর বিখ্যাত হওয়ার পিছনে অনেকগুলো জিনিস ও কারণ রয়েছে। গাজীপুর জেলার বিখ্যাত ব্যক্তিবর্গগণ হচ্ছেন

  1. স্বাধীন বাংলাদেশের সর্বপ্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমদ গাজীপুর জেলার নাগরিক ছিলেন।
  2. বিজ্ঞানী ডক্টর মেঘনাদ সাহা তিনিও গাজীপুর জেলার নাগরিক ছিলেন।
  3. সাংবাদিক ও সাহিত্যিক আবু জাফর শামসুদ্দিন।
  4. কবি গোবিন্দ চন্দ্র দাস।
  5. মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ মাস্টার প্রমুখ ব্যক্তি বর্গগণ এই গাজীপুর জেলার নাগরিক বা বাসিন্দা ছিলেন।

তাছাড়াও যদি কথা বলা হয় উৎপাদনের দিক দিয়ে গাজীপুর কিসের জন্য বিখ্যাত। তাহলে, গাজীপুর জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি ফলনশীল ফল হচ্ছে কাঁঠাল এবং পেয়ারা

তাই, বলা যেতে পারে গাজীপুর কাঁঠাল এবং পেয়ারা উৎপাদনের জন্যও অনেক বিখ্যাত

গাজীপুরের পূর্ব নাম কি?

গাজীপুর জেলার সবচেয়ে প্রাচীন নাম হচ্ছে ভাওয়াল। পরবর্তীতে এ নামটি পরিবর্তন করা হয় এবং এর নাম দেওয়া হয় জয়দেবপুর। এই জয়দেবপুরের নামে তৎকালীন একটি রেল স্টেশন স্থাপন করা হয়। সেই স্টেশনের নামটি ছিল জয়দেবপুর জংশন

এরপর সর্বশেষ ১৯৮৪ সালে এই জয়দেবপুর জেলাকে গাজীপুর জেলায় নামকরণ করা হয়। ইতিহাস ব্যাখ্যা করলে জানা যায় একসময় মুসলিম কুস্তিগীর পালোয়ান গাজী এর অঞ্চলে বসতি স্থাপন করেছিলেন। তিনি এই অঞ্চলে বহুদিন সাহস ও সাফল্যের সাথে এই অঞ্চলটি শাসন করেছিলেন।

Read More : কুড়িগ্রাম জেলা কিসের জন্য বিখ্যাত? কুড়িগ্রাম জেলার বিখ্যাত ব্যক্তি

তার নাম অনুসারেই নাকি এই অঞ্চলের নাম গাজীপুর করা হয়। তাছাড়া ইতিহাসে আরেকটি তথ্য পাওয়া যায়। মুঘল সম্রাট আকবরের শাসনামলে জমিদার ঈশা খাঁ এর এক অনুসারীর নাম ছিল ফজল গাজী।

ফজল গাজী ছিলেন ভাওয়াল রাজ্যের প্রথম প্রধান। যেহেতু গাজীপুর জেলায় ভাওয়াল স্থাপনা রয়েছে তাই এই অঞ্চলটি অবশ্যই এক সময় ভাওয়ালকর্তৃক শাসিত হয়েছে।

তাই ধারণা করা যায় ভাওয়াল রাজ্যের প্রথম প্রধান ফজল গাজীর পদবি অনুসারেই কালক্রমে এই অঞ্চলের নাম গাজীপুর করা হয়েছে।

গাজীপুর জেলার আয়তন কত?

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশকে মোট 11 টি সেক্টরে ভাগ করা হয়। যার মধ্যে গাজীপুর জেলাটি ছিল ৩ নং সেক্টরে। এই বিখ্যাত গাজীপুর জেলার মোট আয়তন হচ্ছে ১৭৭০.৫৪ বর্গ কিলোমিটার। ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী তৎকালীন এই জেলার মোট জনসংখ্যা ছিল ৩৪ লক্ষ ৩ হাজার জন।

গাজীপুর দর্শনীয় স্থানগুলো কি কি?

ঢাকা শহরের সবচেয়ে কাছে ঘুরে বেড়ানোর জন্য এই জেলাটি অন্যতম একটি জেলা। গাজীপুর জেলার মধ্যে অনেকগুলো ঐতিহাসিক নিদর্শন রয়েছে। গাজীপুর জেলার ১৬টি বিখ্যাত বা দর্শনীয় স্থানসমূহ হচ্ছে –

  1. ঘুরে বেড়ানোর জন্য বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক
  2. জাগ্রত চৌরঙ্গী
  3. দত্তপাড়া জমিদার বাড়ি
  4. পাঞ্জুরা চার্চ
  5. আনন্দ পার্ক
  6. সিঙ্গার দীঘি
  7. রাঙ্গামাটি ওয়াটার ফ্রন্ট
  8. বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানা
  9. বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট
  10. বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট
  11. জাতীয় কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্র
  12. জাতীয় কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্র
  13. দেশের সর্বপ্রথম মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগার
  14. জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়
  15. ভাওয়াল জাতীয় উদ্যান ও
  16. ভাওয়াল রাজবাড়ী ইত্যাদি অসংখ্য স্থান সমূহ এই জেলার মধ্যে রয়েছে।

Read More : আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস অনুচ্ছেদ ১০০, ২০০ এবং ২৫০ শব্দে

গাজীপুর থানা কয়টি?

এই জেলার মধ্যে মোট ৭টি থানা রয়েছে। ঢাকা বিভাগের অন্তর্ভুক্ত এই গাজীপুর জেলার মোট পাঁচটি উপজেলা রয়েছে। উপজেলাগুলো হচ্ছে-

  1. গাজীপুর সদর
  2. শ্রীপুর
  3. কালিয়াকৈর
  4. কাপাসিয়া ও
  5. কালিগঞ্জ।

গাজীপুর বিখ্যাত খাবার

গাজীপুরের বিখ্যাত খাবারের মধ্যে সবচেয়ে উপরে স্থান হচ্ছে গরুর কালাভুনা। গাজীপুরের হোটেল, রেস্তোরা সকল জায়গার গরুর কালাভুনা তৈরী করা হয়। এখানকার লোকজন শখ করে এই কালাভুনা খেয়ে থাকে।

তাছাড়া অন্যান্য অঞ্চল থেকে বেড়াতে আসা লোকজনও গাজীপুরের বিখ্যাত কালাভুনা খেতে ভালোবসে। তাছাড়া বিভিন্ন ফাস্ট ফুড খেতে এখানকার লোকজন পছন্দ করেন। কাচ্চি বিরিয়ানি, ঝালমুড়ি ইত্যাদি খাবারগুলোও গাজীপুরের লোকদের পছন্দনীয় খাবার।

তবে এই জেলাটি কাঁঠাল ও পেয়ারা উৎপাদনের জন্যেই বেশি বিখ্যাত। তারপর গরুর কলাভূনার জন্য। বাংলাদেশের বাকি এলাকা গুলোর মতো এখানেও বাঙালি খাবারগুলো অনেক বেশি খাওয়া হয়।

Conclusion

এই ব্লগপোস্টে বাংলাদেশের অন্যতম একটি জেলা গাজীপুর নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। বিশেষ করে গাজীপুর কিসের জন্য বিখ্যাত এই বিষয়ের উপর প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

তাছাড়াও গাজীপুর জেলা নিয়ে যতগুলো প্রশ্ন ও জিজ্ঞাসা থাকে সেসব গুলো বেছে বেছে উত্তর দেওয়া হয়েছে। আমি আশা করছি আমার ব্লগপোস্টে দেওয়া তথ্যগুলো আপনার জন্য যথেষ্ট হবে। কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করতে পারেন।

Read More : বন্ধুকে চিঠি লেখার নিয়ম বাংলা

FAQ

  1. গাজীপুর ১ আসনের এমপি কে?

    গাজীপুর ১ আসনের বর্তমান সংসদ এমপি হচ্ছে আ.ক.ম. মোজাম্মেল হোক। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হতে মনোনয়ন পেয়ে ভোটে অংশ গ্রহণ করেছিলেন। আর জয়লাভের পর গাজীপুর ১ আসনের এমপি হয়েছেন। দল হিসেবে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ দলের নেতা।

  2. গাজীপুর জেলার লোক সংখ্যা কত?

    গাজীপুর জেলার বর্তমান জনসংখ্যা ৫২,৬৩,৪৭৪ জন। অর্থাৎ, ৫২ লক্ষ ৬৩ হাজার ৪৭৪ জন।

By AzimAdmin

Hi, I am a professional Blogger & SEO Expert. I am working on this field since 2019. I've a huge experience in my profession. I also worked on so many projects and websites.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *