ইলিমেট প্লাস লোশন ব্যবহারের নিয়ম - কাজ কি, দাম কত, সতর্কতা

আশা করছি সকলে ভালো আছেন। আজকে উপস্থিত হয়েছি নতুন একটি পোস্ট নিয়ে। আজকে আলোচনা করব ইলিমেট প্লাস লোশন ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে। ইলিমেট প্লাস লোশনটি ব্যবহার করতে চাচ্ছেন কিংবা ব্যবহার করে আছেন আসছেন তাদের উদ্দেশ্যে আজকের এই সম্পূর্ণ আলোচনা।

ইলিমেট প্লাস লোশন ব্যবহারের নিয়ম, এর কাজ, উপকারিতা ও দাম ইত্যাদি সকল বিষয়ে আজকে এই পোস্টে সম্পূর্ণ বিস্তারিত আলোচনা করার যথাসম্ভব চেষ্টা করব। এটি একটি লোশন হিসেবে পরিচিত হলেও আসলে এটি একটি ঔষধ। কেননা চিকিৎসা ক্ষেত্রে এই লোশনটি ব্যবহার করা হয়।

Read More : লরিক্স প্লাস লোশন ব্যবহারের নিয়ম | লরিক্স প্লাস লোশন এর দাম

ইলিমেট প্লাস লোশন ব্যবহারের নিয়ম – Elimate plus lotion uses in bangla

এই ইলিমেট প্লাস লোশনটি স্ক্যাবিস অথবা স্ক্যাবিসজণিত চুলকানির ক্ষেত্রে অধিক কার্যকরী। ইলিমেট প্লাস নামক এই ওষুধটি ক্রিম ও লোশন উভয় আকারে পাওয়া যায়। যারা ইতিমধ্যে ব্যবহারের জন্য এই লোশনটি ক্রয় করে এনেছেন; তারা নিম্নবর্ণিত পদ্ধতি অনুযায়ী এই লোশন টি ব্যবহার করবেন।

নিচের পদ্ধতিটি বিশেষজ্ঞদের দেওয়া পরামর্শ থেকে নেওয়া। তাছাড়াও আপনার রেজিস্টার চিকিৎসক যদি আপনাকে ভিন্নভাবে এই লোশনটি ব্যবহার করতে বলেছেন। তবে আপনি তিনার উপদেশ মোতাবেক লোশনটি ব্যবহার করবেন।

তবে যারা এই লোশনটির ব্যবহার বিধি সম্পর্কে কোন ধারণা রাখেন না। তারা নিচে আলোচনা করা আমার নিয়মটি অনুসরণ করে দেখুন ইনশাআল্লাহ শতভাগ সুফল পাবেন।

  1. লোশনে সুস্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে এটি কেবলমাত্র শরীরের বাহ্যিক স্থানে ব্যবহার করা যাবে।
  2. কাজেই শরীরে অভ্যন্তরীন কোন অংশে দয়া করে এই লোশনটি ব্যবহার করবেন না।
  3. লোশন টি কেবল গলা হতে পা পর্যন্ত ব্যবহারযোগ্য।
  4. নিজের মুখে কোনভাবে এ লোশনটি ব্যবহার করবেন না।
  5. ব্যবহার করার আগে আপনার ক্ষতস্থান অবশ্যই জীবাণুমুক্ত করতে হবে।
  6. জীবাণুমুক্ত করার জন্য আপনি সুষম গরম পানি ব্যবহার করতে পারেন।
  7. অথবা অ্যান্টিসেপটিক দিয়ে ভালোভাবে আপনার ক্ষতস্থান জীবাণুমুক্ত করুন।
  8. এখন সামান্য পরিমাণ কিংবা সীমিত পরিমানে ইলিমেট প্লাস লোশনটি নিজের হাতে ঢালুন।
  9. ভালোভাবে ক্ষতস্থানে এই লোশনটি লাগিয়ে নিন।
  10. লোশনটি সর্বনিম্ন ৮ ঘণ্টা পর্যন্ত ক্ষতস্থানে লাগিয়ে রাখতে হবে।
  11. এর পূর্বে যদি সেই স্থানটি ধুয়ে ফেলেন তাহলে পুনরায় সেখানে লোশন লাগিয়ে দিন এবং সর্বমোট আট ঘন্টা অতিবাহিত না হলে লোশনটি ধুয়ে ফেলা যাবে না।
  12. ব্যবহারের ৮ ঘণ্টা অতিবাহিত হয়ে গেলে আপনি লোশনটি ধৌত করতে পারেন।
  13. তবে ১২ ঘন্টা পর গরম পানি দিয়ে গোসল করে নিতে হবে।
  14. ১২ ঘন্টা পর সম্ভব না হলে আপনার সুবিধা মত আরো কিছু সময় নিয়ে গোসলটি করতে হবে।
  15. তবে অবশ্যই গরম পানি দিয়ে গোসল করবেন।

Read More : ফ্রোজেন কোলাজেন লোশন ব্যবহারের নিয়ম – এর উপকারিতা ও দাম

সতর্কতা

লোশনটি ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু কিছু সতর্কতা অবশ্যই মেনে চলতে হবে। কেননা যে সকল রোগের চিকিৎসায় এই লোশনটি ব্যবহার করা হয় সে রোগগুলো ছোঁয়াচে রোগ। পরিবারের এক সদস্য হতে অন্য সদস্য পর্যন্ত রোগটি নিমিষেই সংক্রমণ করতে পারে। তাই যে ব্যক্তি এই লোশনটি ব্যবহার করবেন তার জন্য নিম্নের সর্তকতা গুলো মেনে চলা অত্যন্ত জরুরী।

  • আপনার যদি খোস-পাঁচড়া কিংবা চুলকানি থেকে থাকে। তাহলে আপনার কাপড়-চোপড় ও ব্যবহারের বস্তুগুলো হতে এই রোগটি আপনার পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়তে পারে।
  • তাই লোশনটি ব্যবহার করার পর নিজের শরীর ভালোভাবে গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে কিংবা গোসল করতে হবে।
  • যতক্ষণ না আপনার স্ক্যাবিস, চুলকানি, খোস-পাঁচড়া ঠিক হচ্ছে ততক্ষন আপনার বস্ত্র, বিছানার চাদর, বালিশের খোল সকল কিছু ভালোভাবে এন্টিসেপ্টিক দিয়ে জীবাণুমুক্ত করে রাখতে হবে। যাতে অন্যদের মধ্যে এই রোগটি ছড়িয়ে না পরে।
  • তাছাড়াও ইলিমেট প্লাস লোশনটি ব্যবহারের পরও একই কাজ করতে হবে।
  • লোশনটি কেবলমাত্র ১বার ব্যবহার করুন। আপনার রোগ সেরে না উঠলে আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ৭দিন পর আবারো একই পদ্ধতিতে ব্যবহার করুন।
  • এই লোশনটি দৈনিক ব্যবহার করা যাবে না। এটি আপনার জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।
  • লোশনটি মুখে ব্যবহার করবেন না। ব্যবহার করলে এর দায়ভার সম্পূর্ণ আপনার।

Elimate plus lotion এর কাজ কি

চিকিৎসকেরা এই ইলিমেট প্লাস লোশনটি যেসকল রোগের চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করে থাকে সেগুলো জেনে গিয়েছি। তবে অনেকে জানতে চায় লোশনটি কোন কাজে ব্যবহার করা হয়। অর্থাৎ লোশন টির কার্যকারিতা কি কি। তাই আমরা নিচের Elimate plus lotion এর কাজগুলো জানিয়ে দিচ্ছি –

➢ এই ক্রিম / লোশনটির মূল কাজ হচ্ছে খোস-পাঁচড়া নিরাময় করা
➢ চুলকানি দমন করা
➢ ক্ষত নিরাময় এর নিশ্চয়তা দেওয়া
➢ আক্রান্ত স্থানে পুনরায় যেন সংক্রমণ না হয় সেটা প্রতিরোধ করা
Elimate plus lotion এর কাজ কি

Read More : ক্যালামাইন লোশন ব্যবহারের নিয়ম – ক্যালামাইন লোশন দাম ও কাজ

ইলিমেট প্লাস লোশন এর দাম – Elimate Plus lotion price in Bangladesh

এই লোশনটির দাম জানার আগে আমাদেরকে জেনে রাখতে হবে লোশনটি কোথায় কিনতে পাওয়া যাবে। আপনারা যেকোন এলোপ্যাথি মেডিসিনের ফার্মেসিতে লোশনটি সহজে ক্রয় করতে পারবেন। তবে রেজিস্টার চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন ছাড়া কোনো ওষুধ ক্রয় করা ঠিক নয়।

আপনার চিকিৎসক যদি এই লোশনটি প্রেস্ক্রাইবড করে থাকেন তাহলে প্রেসক্রিপশন সাথে করে নিয়ে যাবেন। তারপর আপনার পার্শ্ববর্তী যে কোন ফার্মেসির দোকান থেকে এ লোশনটি ক্রয় করে নিন। এখন লোশন টির দাম সম্পর্কে জানা যাক।

ইলিমেট প্লাস লোশন ৬০মিলি বোতলে পাওয়া যায়। ইলিমেট প্লাস লোশন এর দাম ১৩০/- টাকা। তবে স্থানভেদে এর দাম ভিন্ন হতে পারে। লোশনটির প্যাকেটে বিক্রয় মূল্য ১৫০/- টাকা লেখা থাকলেও কিছু কমদামে বিক্রি হবে এটাই স্বাভাবিক।

আপনারা যারা লোশনটি ব্যবহার করছেন কিংবা ব্যবহার করতে চাচ্ছেন। অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞ স্কিন ডাক্তার বা চর্ম রোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে এই লোশনটি ব্যবহার করুন। নিজে নিজে কোনো ঔষধ ব্যবহার করা নিজের জন্যেই ঝুঁকিপূর্ন।

উপসংহার

আজকের পোস্টে ইলিমেট প্লাস লোশন ব্যবহারের নিয়ম আপনাদের মাঝে আলোচনা করা হয়েছে। তাছাড়া ইলিমেট প্লাস লোশন ব্যবহারের নিয়ম এর কাজ কি, এর সতর্কতা ও এর দাম বিস্তারিতভাবে জানানো হয়েছে। অতিরিক্তভাবে ইলিমেট প্লাস লোশন ব্যবহারের নিয়ম কোথায় পাওয়া যায় এবং লোশনটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে কিছু পরামর্শ দিয়েছি।

আশা করছি পোস্টটি আপনার কাছে উপকারী মনে হয়েছে। তাই পোস্টটি শেয়ার করে সকলের কাছে পৌঁছে দিন। কোনো কিছু বলার ও জানার থাকলে কমেন্ট করুন। শতভাগ উত্তর দেওয়া হবে। ধন্যবাদ।

By AzimAdmin

Hi, I am a professional Blogger & SEO Expert. I am working on this field since 2019. I've a huge experience in my profession. I also worked on so many projects and websites.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *